এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল

সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৩

অনলাইন আউটসোর্সিং এর কিছু কাজের ক্ষেত্র

আজ আমি আপনাদের সামনে আউটসোর্সিং এর  কিছু কাজের ব্যাপারে সংক্ষিপ্ত তথ্য নিচে দিলাম। আপনারা কাজগুলো চেষ্টা করে দেখতে পারেন :

অ্যামাজন ম্যাকানিকাল টার্ক
নিয়মিত আয়ের পাশাপাশি অতিরিক্ত আয়ের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক অ্যামাজনের মেকানিকাল টার্ক বেশ ভালো একটি উপায় হতে পারে। এখানে কাজ করে অবশ্য ঘন্টায় কয়েক ডলারের বেশি আয় করা সম্ভব নয়। তবে এখানে পর্যাপ্ত পরিমানে কাজ রয়েছে। এখানকার বেশির ভাগ কাজ গুলোই শেষ করতে এক মিনিটের চেয়ে কম সময় লাগে। আর এ জন্য আপনি পেতে পারেন কয়েক পেনি করে। এখানে কাজ করে বেশি অর্থ উপার্জন করা না গেলেও কিছু হলেও করতে পারবেন।

নিজস্ব সংগ্রহের ছবি বিক্রি
আপনি ফটোগ্রাফার হলে অনলাইনে আপনি নিজের তোলা অথবা আপনার সংগ্রহের ছবি বিক্রি করতে পারেন। এ ধরণের আরো অনেক সাইট রয়েছে। তবে নিজের সংগ্রহ অনলাইনে দেয়ার আগে কোন ধরণের ছবির চাহিদা ভালো আপনি সেটি আগে যাচাই করে নিন। ছবি নিয়ে যারা কাজ করতে ভালোবাসেন তাদের পক্ষেও অনেক সাইট কাজ করে থাকে। জনপ্রিয় অনেক ছবিই কম্পিউটারের সহযোগিতায় তৈরী করা হয়েছে। তাই দেরি না করে তিনটি সুন্দর ছবি নিয়ে "istockPhoto" সাইট এ পরিদর্শনের জন্য পাঠাতে বসে যান। এতে সাইন আপ করলেই ছবি পাঠানোর সুযোগ পাবেন। এভাবে আপনি নিজের ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্স আর্টিকেল লেখক
অনলাইনে আয়ের ক্ষেত্রে এই ক্ষেত্রটিতে আর্থিক সুবিধা খুব বেশি না হলেও এর চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে। ২০০ থেকে ৩০০ শব্দের একটি আর্টিকেল লিখেই আর্টিকেল ডিরেক্টরিতে পাঠিয়ে দিতে পারেন। ব্লগার, বিপননকারী এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীসহ অনেকেই এর গুরুত্বপূর্ন গ্রাহক। আপনি বেশ কয়েকটি আর্টিকেল এক সঙ্গে লিখে প্যাকেজ হিসেবেও এক বা একাধিক গ্রাহকের কাছে বিক্রি করতে পারেন। এক্ষেত্রে প্রতি শব্দ ভিত্তিক মূল্য ধরেও গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী আর্টিকেল লেখা যেতে পারে। গ্রাহকের কাছ থেকে কোন নির্দেশ না পেলে এক্ষেত্রে সফলতার জন্য "Online Writing Jobs", "PoeWar Freelance Jobs" এবং "Writing.com". এর মতো ওয়েব সাইটগুলো ভিজিট করে আপনি আর্টিকেল লিখে কীভাবে আয় করবেন সেই সম্পর্কে ধারনা পেতে পারেন।

অডিও শুনে লেখা
এই কাজটি বেশ সহজ বলে এতে পারিশ্রমিকের পরিমান খুব বেশি নয়। তবে অর্থ উপার্জনের ক্ষেত্রে এটিও একটি উপায় হিসেবে বিবেচনা করা যায় এ কাজ শুরু করতে oDesk এ সাইনআপ  করুন। এছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক কোম্পানির ফোরামে আপনার নিজের কাজের আগ্রহ সম্পর্কে জানাতে পারেন। এজন্য অবশ্য শোনার দক্ষতা এবং ইংরেজি ভাষাতে যথেষ্ট দক্ষতা থাকা লাগবে। তাহলে আপনি এই কাজটি করে বাড়তি আয় করতে পারবেন।

www.ehow.com -তে আর্টিকেল লিখে আয়
keyword research এর মৌলিক বিষয়গুলো যদি আপনার জানা থাকে, তাহলে প্রতি মাসে eHow তে আর্টিকেল লিখে বেশ উল্লেখযোগ্য পরিমানে অর্থ আয় করতে পারেন। এতে আপনার তৈরী করা আর্টিকেল থেকে অর্জিত অর্থের এ্কটি অংশ আপনাকে দেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। আপনি চাইলে সংশ্লিস্ট বিষয়ে একদিনে একাধিক আর্টিকেলও লিখতে পারেন। এভাবে এক মাস চেষ্টা করুন। গুগলে সবচেয়ে বেশি খোঁজ করা হয় এমন আর্টিকেল লিখতে পারলে আপনি প্রতি মাসে বেশ ভালো আয় করতে পারবেন। এখানে সবচেয়ে সুবিধা হচ্ছে একবার আপনার লেখা নির্ভাচিত হলে আপনি মাসের পর মাস সেটা থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

কোন পন্যের প্রচারের উপযোগি ভিডিও তৈরী
অনেক গুরুত্বহীন ভিডিও অনলাইনে পন্য বিক্রির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। অনেকেই ছোট ছোট ভিডিও তৈরি করে থাকেন। একটি নির্বাচন করে সেটার উপযোগি ভিডিও তৈরী করে ইউটিউবে ছেড়ে দিন। ভিডিওতে পন্যটির লিঙ্ক দিয়ে দিন। ভিডিওটি শেষে ৩০ সেকেন্ডের একটি স্টিল ফ্রেমে পন্যটি কেনার বিজ্ঞাপন দিয়ে দিন। আপনার ভিডিওটি তথ্যসমৃদ্ধ, মজার এবং প্রয়োজনীয় প্রমানিত হলে আপনিও কিছু পন্য বিক্রি করতে পারেন। এভাবে ভিডিও তৈরি করে আপনি বেশ ভালো আয় করতে পারেন।

ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আয়
আপনার নিজের তৈরি করা ওয়েব সাইটের মাধ্যমে অন্য সাইটের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয় করতে পারেন। পে-পার-ক্লিক বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিভিন্ন পন্য বিক্রির ওয়েবসাইটের প্রচারণার মাধ্যমে আয় করা যায়। যখন একটি পন্য বিক্রি হবে তখন সে বিক্রির একটি অংশ আপনার একাউন্টে পাঠিয়ে দেয়া হবে। অনলাইনে বেশ ভালো আয়ের ক্ষেত্র হিসেবে অনেকেই এই কাজটি করে ভালো অবস্থানে আছেন।

স্থানীয় বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠানকে অনলাইনের সুবিধা
আমরা সকলেই জানি ব্যবসায়ীদের প্রতিটা মুহূর্তেই প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে কাজ করে যেতে হয়। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অনেকের নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকে না। যাদের রয়েছে তারাও সেটা থেকে অনেক সময় আশানুরুপ ফলাফল পান না। এ ক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইট তৈরীর জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ীদেরকে তাদের ব্যবসা প্রসারে সহায়তা করতে পারেন। আপনার সহযোগিতায় ব্যবসায়ীরা উপকৃত হলে আপনি এর সুফল পাবেন। এভাবে আপনি মাসে ভালো অর্থ আয় করতে পারবেন।

প্লাগইন তৈরী করুন
বর্তমানে বিভিন্ন ব্লগে প্লাগইন বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ওয়ার্ডপ্রেস শিখে এসব ব্লগারদের কাছে নতুন নতুন প্লাগইন পাঠানোর মাধ্যমেও আয় করা এখন খুব জনপ্রিয় মাধ্যম। এর আয় একেবারে কম নয়। ব্লগারদের চাহিদা অনুযায়ী প্লাগইন সরবরাহ করার মাধ্যমে একে পূর্নকালীন পেশা হিসেবেও নেয়ে যেতে পারে।

বিশেষ সফটওয়্যার বিশেষজ্ঞ হয়ে উঠুন
আমাদের দেশে পাইরেসি আইন তেমন কার্যকর নয় বলে আমরা ইচ্ছে মতো সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারছি বলে, বিশেষ প্রয়োজনীয় কোন সফটয়্যারের গুরুত্ব কখনো কমে যায়নি। এক্ষেত্রে প্রয়েজনীয় সফটওয়্যারে বিশেষ দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে অনেক সময়ই বিভিন্ন কোম্পানিকে বড় ধরণের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করা যায়। তাই আপনি সফটওয়্যারে বিশেষ দক্ষতা অর্জন করে অনলাইনে বেশ ভালো পরিমান অর্থ আয় করতে পারেন।

অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে এই ধরনের আরো অনেক কাজ আছে যা আপনারা চাইলে করতে পারেন। আপনারা উপরের কাজগুলোও জানা থাকলে করতে পারেন। এভাবে আপনি আপনার কাজের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে অনলাইনে কাজ করে ভালো অর্থ আয় করতে পারেন।

২টি মন্তব্য: