এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল

মঙ্গলবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৩

আউটসোর্সিং এর শুরুটা যেভাবে করবেন (পর্ব ৩)

আউটসোর্সিং এর শুরুটা কীভাবে করবেন তা নিয়ে এই হল আমার ধারাবাহিক পর্বের তৃতীয় পর্ব।

আজকের ধারাবাহিক প্রতিবেদনে আমরা জানবো আউটসোর্সিং এ কাজ করার জন্য কোন কাজ করতে হলে কি যোগ্যতা লাগে।
ওয়েব ডেভেলপমেন্ট:  সাধারণত, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ করতে হলে আপনাকে অবসশই ওয়েবসাইট তৈরি করা জানতে হবে। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর বিভিন্ন ভাষা রয়েছে, যেমন ঃ এইচটিএমএল, সিএসএস, জাভা স্ক্রিপ্ট, পিএইসপি, মাইএসকিউএল ইত্যাদি কাজ ভালোভাবে জানতে হবে। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট যেহেতু এক্তি সমন্বিত কাজ তাই এই সবগুলো কাজ ভালভাবে শিখুন তার পর দুই একটা পরীক্ষা দিলে আপনার কাজ পেতে সুবিধা হবে।
সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট: সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট এর কাজ পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই সফটওয়্যার  তৈরি করা জানতে হবে। সফটওয়্যার  তৈরি করার বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ভাষা যেমন, জাভা, সি শার্প, ভিজুয়াল বেসিক, মাইএসকিউএল, ওরাকল, এসকিউএল সার্ভার ইত্যাদি সম্পর্কে ভালো কাজ জানতে হবে।
নেটওয়ার্কিং ও ইনফরমেন সিস্টেম: আউটসোর্সিং এর এই বিভাগ এর মধ্যে রয়েছে ডেটাবেইস, নেটওয়ার্কিং ইত্যাদি। এই কাজগুলো ভালোভাবে পারলে আপনার কাজ পেতে সুবিধা হবে।
লেখা ও অনুবাদ: এ ধরনের কাজের জন্য আপনাকে অবশ্যই ইংরেজিতে দক্ষ হতে হবে, কারিগরি জ্ঞান থাকতে হবে, ওয়েবসাইট, ব্লগ, ইন্টারনেট সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে। পরিশেষে আপনার লেখা-লেখির অভ্যাস থাকতে হবে।
অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সাপোর্ট: আউটসোর্সিং এর এই বিভাগের কাজগুলো তুলনামূলকভাবে অনেক সহজ। মূলত কপি পেস্টের কাজ। কম্পিউটার, ইন্টারনেট, ওয়েবসাইট, ব্লগ, ই-মেইল, ফেসবুক, টুইটার, গুগল এসব ওয়েবসাইট সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে।
ডিজাইন ও মাল্টিমিডিয়া: ডিজাইন ও মাল্টিমিডিয়া এর কাজ করতে হলে আপনাকে গ্রাফিক্সের কাজ জানতে হবে। ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর, ইন-ডিজাইন, ফ্ল্যাশ ইত্যাদি অবশ্যই জানা লাগবে এবং আপনার গণিত ও পদার্থ বিজ্ঞান এর সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকতে হবে।
গ্রাহকসেবা: সাধারণত, এই বিভাগের কাজের জন্য আপনাকে ইংরেজিতে দক্ষ হতে হবে। দ্রুত ইংরেজি বলতে পারা এবং লিখতে পারা জানতে হবে।
বিক্রয় ও বিপণন: আউটসোর্সিং এর এই বিভাগ এর কাজ করতে হলে ই-কমার্স সাইটগুলো সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে। ই-কমার্স ওয়েবসাইট, ব্লগ, ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগ (ফেসবুক, টুইটার), বিপণন, এসইও (সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন) ইত্যাদি সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে।
বিজনেস সার্ভিসেস: এই বিভাগের কাজের জন্য আপনার ব্যবসায়িক জ্ঞান থাকতে হবে। লেনদেনের বিভিন্ন মাধ্যম (পেমেন্ট মেথড) সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন