এই গ্যাজেটে একটি ত্রুটি ছিল

শনিবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৩

ফ্রি-ল্যান্সিং সাইটগুলোতে কাজ করতে আপনাকে যা যা করতে হবে

আজ আমরা আলোচনা করবো ফ্রি-ল্যান্সিং সাইটগুলোতে কাজ করতে আপনাদের কি কি করতে হবে।

সাধারণত, ফ্রি-ল্যান্সিং সাইটগুলতে কাজ করতে হলে প্রথমেই আপনাকে কাজে বিড করতে হবে। তবে বিড করার আগে আপনাকে ভেবে দেখতে হবে আপনি আসলে কাজটি  সঠিকভাবে করতে পারবেন কিনা, তবেই আপনি কাজে বিড করবেন। নাহলে, দেখা যাবে আপনি কাজতি ঠিক ভাবে করতে না পারলে বায়ার আপনার উপর বিরক্ত হবে এবং আপনাকে বাজে ফিডব্যাক দিবে যার ফলাফল আপনার জন্য ভালো হবে না। তাই কাজে বিড করার আগে প্রথমেই কাজটি সম্পর্কে ভালভাবে পড়ুন। বুঝতে না পারলে আবারো পড়ুন। ইংরেজি বুঝতে সমস্যা হলে আপনি গুগল ট্রান্সলেটরের সাহায্য নিতে পারেন। এই জন্য এই লিঙ্কটিতে যেতে হবে- translate.google.com . সহজে কাজ পেতে হলে প্রথমে আপনাকে আপনার প্রোফাইল ১০০% পূর্ণ করতে হবে তাহলে আপনার কাজ পেতে সুবিধা হবে। তবে নতুনদের জন্য আমার পরামর্শ প্রথম প্রথম কাজ পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই কষ্ট করতে হবে।

আউটসোর্সিং এ সহজেই কাজ পাওয়ার কিছু টিপসঃ
১) প্রথমে কম মূল্যে বিড করবেন।
২) আপনি যেই কাজে দক্ষ শুধু সেই কাজেই বিড করবেন।
৩) পোর্টফোলিও যোগ করবেন।
৪) কোন কাজ না পারলে সেখানে কখনই বিড করা উচিত নয়।
৫) সাধারণত যেসব কাজ একটু কঠিন এবং যেসব কাজে কম বিড পড়ে সে রকম কাজ পাওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। তাই, কাজ শুরু করার আগে সব ধরনের কাজ একটু পর্যবেক্ষণ করে নিজেকে তৈরি করে নিন।
৬) ইন্টারনেটে নানা ধরনের কাজ পাওয়া যায়। আপনি যে কাজই করে থাকুন না কেন, সেটাতে দক্ষ হয়ে উঠলে তবেই কাজের জন্য আবেদন করবেন।
৭) কাজ শুরু করার পুরবে ভালোভাবে বুঝে নিন আপনার  ক্লায়েন্ট কি চায় এবং সে অনুযায়ী কাজে বিড করুন।
৮) আপনাকে অবশ্যই ইন্টারনেটে দক্ষ হতে হবে।
৯) ফিক্সড প্রাইসের কাজের ক্ষেত্রে কাজের নির্দিষ্ট সময়ের আগেই কাজ শেষ করুন এবং ক্লায়েন্টের কাছে পাঠিয়ে দিন।
১০) আপনার পুরো কাজটিকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করুন ও প্রতিটি ধাপ শেষ হওয়ার পর তা আপনার বায়ার দেখান।

এভাবে আপনি ধীরে ধীরে এগিয়ে গেলে অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজ পেতে আপনার অনেক সুবিধা হবে এবং আপনি বায়ারদের কাছ থেকে ভালো ফিডব্যাক পাবেন যা পরবর্তীতে আপনার কাজ পেতে সুবিধা হবে।

Source: Online Tunes Bangladesh

বুধবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৩

আউটসোর্সিং এর অনলাইন মার্কেটপ্লেসসমূহ

বর্তমান বিশ্বে অনলাইনে কাজ করার জন্য অনলাইন মার্কেটপ্লেসগুলোর মধ্যে oDesk, Freelancer, Elance, Guru এই সাইটগুলো শীর্ষে রয়েছে। তবে এই সাইট গুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট হল oDesk। এক হিসেবে,২০১২ সালে শুধু ওডেস্কে সাড়ে তিন কোটি ঘণ্টা কাজ হয়েছে। নির্দিষ্ট এবং ঘণ্টাভিত্তিক কাজের জন্য oDesk ই এমপ্লোয়ারদের কাছে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। এর পরই জনপ্রিয় সাইট হল Elance। ইল্যান্সের প্রধান নির্বাহী ফাবিও রোসাটি এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, উচ্চ পর্যায়ের ফ্রিল্যান্স কাজের বাজার নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী ইল্যান্স, আর তাই ইবে এবং ফেসবুকের মতো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এমন সাধারণ পর্যায়ের কাজ করার কোনো চুক্তি করা হয় না। এর বিপরীত মত নিয়ে ওডেস্কের প্রধান নির্বাহী গ্যারি সোয়ারট বলেন, বড় আকারের প্রতিষ্ঠানগুলোর চাহিদা সৃজনশীলভাবে মেটাতে পারে বলেই ওডেস্কের অগ্রগতি বজায় থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে, অনলাইন মার্কেটপ্লেস হিসেবে তৃতীয় অবস্থান হিসেবে ফ্রিল্যান্সার সাইটটিকে বর্তমানে মানা হয়। এক দিক থেকে নিবন্ধিত ফ্রিল্যান্সারের হিসেবে এ সাইটটি অন্যান্য সাইট থেকেও শীর্ষে। এ সাইটটিতে বর্তমানে প্রায় ৭০ লাখের মত নিবন্ধিত ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন। কিন্তু সাইটটিতে নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের কাজের জন্য এবং পারিশ্রমিক কমের জন্য বর্তমানে এটি পিছিয়ে পড়েছে।

মঙ্গলবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৩

আউটসোর্সিং এর শুরুটা যেভাবে করবেন (পর্ব ১১)

আজকে আপনাদের সাথে অনলাইন মার্কেটপ্লেস ওডেস্কের ঘন্টাভিত্তিক এবং নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের কাজের সম্পর্কে আলোচনা করবো

সাধারণত, ওডেস্কে দুই ধরনের কাজ পাওয়া যায়। কাজগুলো হলো—ঘণ্টাভিত্তিক (আওয়ারলি) এবং নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের কাজ (ফিক্সড প্রাইস)। া 

প্রথমে আপনি সিদ্ধান্ত নিবেন আপনি কোন ধরণের কাজ করবেন। অর্থাৎ, আপনি ঘণ্টাভিত্তিক নাকি ফিক্সড প্রাইসের কাজ করবেন। আপনার কাজটি যদি হয় ফিক্সড প্রাইসের তাহলে আপনি কত ডলারের বিনিময়ে কাজটি করতে চান টা নির্দিষ্ট করে কাজে আপ্লাই করুন। আর আপনি যদি ঘণ্টাভিত্তিক কাজ করতে চান তাহল্র প্রতি ঘণ্টা কত ডলারের বিনিময়ে কাজটি করতে চান তা উল্লেখ করুন। আপনি যদি ঘণ্টাভিত্তিক কাজ করতে চান তাহলে আপনাকে www.odesk.com/downloads এই ঠিকানা থেকে ওডেস্ক টিম সফটওয়্যারটি নামিয়ে নিতে হবে। এটি ইনস্টল করার পর সফটওয়্যারটি চালু করে আপনাকে সাইন-ইন করতে হবে। এরপর আপনি যে কাজটি করতে চান, সেটি নির্বাচন করে Start-এ ক্লিক করবেন। তাহলে, ওই সফটওয়্যারটির মাধ্যমে আপনার কাজের সময় গণনা শুরু হবে। এই সফটওয়্যারটি কিছুক্ষণ পরপর আপনার কম্পিউটারের স্ক্রিনশট নেবে। এটি প্রতি ঘণ্টায় ছয়টি করে স্ক্রিনশট নেবে। এরপর, সময় গণনা শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনার অ্যাকাউন্টে ডলার জমা হতে থাকবে। আপনার কাজটি শেষ হওয়ার পর বায়ার কম্পিউটারের স্ক্রিনশটগুলো দেখে বুঝতে পারবে যে, আপনি কাজটি ঠিক মত করেছেন কি না। তবে স্ক্রিনশট নেওয়ার সময় আপনি ইচ্ছা করলে দুই-একটা স্ক্রিনশট ডিলিট করে দিতে পারবেন।
আপনার কাজটি শেষ হওয়ার পর বায়ার যখন আপনাকে পেমেন্ট দিয়ে চুক্তি শেষ করবেন, তখন আপনার কাছে একটি নোটিফিকেশন আসবে "Buyer's Name" ended your contract। তখন, বায়ার আপনার কাজের মূল্যায়ন বা ফিডব্যাক জানাবেন। আপনিও বায়ারকে একটি ফিডব্যাক দেবেন। পূর্ণমান ৫-এর মধ্যে আপনি বায়ারকে একটি নম্বর দেবেন এবং বায়ারও আপনাকে একটি নম্বর দেবে। কেউ কারোটা আগে দেখতে পাবেন না। উভয় পক্ষ ফিডব্যাক দিলেই কেবল একজন আরেকজনের ফিডব্যাক দেখতে পাবেন। সাধারণত, ৫-এর নিচে কেউই ফিডব্যাক দেয় না। এক্ষেত্রে, আপনি বায়ারের সঙ্গে কাজ করার সময় বুঝতে পারবেন, তার সঙ্গে আপনার সম্পর্ক কেমন এবং তিনি আপনাকে কেমন ফিডব্যাক দিতে পারেন। মনে রাখবেন, ফিডব্যাক নিয়ে আপনি যতটুকু টেনশনে থাকবেন, বায়ারও ঠিক ততটুকু টেনশনে থাকবেন। কারণ, আপনিও বায়ারের মত তাকে বাজে ফিডব্যাক দিতে পারেন। এই ফিডব্যাক আপনার ও বায়ার উভয়েরই প্রোফাইলে যুক্ত থাকবে—যা সবাই দেখতে পাবে। আপনি ভালো ফিডব্যাক পেলে পরবর্তীকালে আপনার কাজ পেতে সুবিধা হবে, তাই এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি বাজে ফিডব্যাক পান তাহলে আপনি তা মুছে ফেলতে পারবেন। এক্ষেত্রে, আপনি বায়ারের পেমেন্ট ফেরত দিয়ে দিলে আপনার প্রোফাইলে ওই বাজে ফিডব্যাক আর দেখা যাবে না। আপনি নোটিফিকেশন পেইজে "Give Refund" -এ ক্লিক করে বায়ারকে পেমেন্ট ফেরত দিয়ে দিতে পারবেন। সাধারণত, বায়ার আপনাকে আপনার কাজের জন্য পেমেন্ট দেওয়ার পর সেই পেমেন্ট এক সপ্তাহের মতো পেন্ডিং থাকবে। তারপর, এক সপ্তাহ পর পেমেন্ট আপনার ওডেস্ক অ্যাকাউন্টে জমা হবে। আপনার ওডেস্ক অ্যাকাউন্ট এ ব্যালেন্স কত আছে এবং পেন্ডিং কত আছে তা দেখতে "Transaction History" -তে ক্লিক করুন।

আউটসোর্সিং এর শুরুটা যেভাবে করবেন (পর্ব ১০)

ওডেস্কে নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের জবে কীভাবে বিড করবেন তা নিয়ে আজ আলোচনা করা হল।

কোনো কাজ যদি হয় ফিক্সড প্রাইসের অর্থাৎ নির্দিষ্ট পারিশ্রমিকের, তাহলে কাজটিতে বিড করার জন্য আপনি ওপরে "Paid to You" -এর ডান পাশের বক্সে কত ডলারের বিনিময়ে কাজটি করতে চান তা লিখুন। এরপর, "Estimated Duration" -এ কাজটি কত দিনের তা নির্বাচন করে দিন। এরপর, "Cover Letter" বক্সে আগে যেমনটি দেখিয়েছিলাম তেমন করে একটি কভার লেটার লিখুন। এরপর, আপনি "Agree to Terms" বক্সে টিক চিহ্ন দিয়ে "Apply to this job" বাটনে ক্লিক করুন। "Upfront payment (optional)" লাগবে না। তবে, "Attachment" এ আপনার করা কন প্রজেক্ট যোগ করে দিতে পারেন। এরপর নতুন পেজ এলে "Yes, I Understand" বক্সে টিক চিহ্ন দিয়ে "Continue to Apply" বাটনে ক্লিক করুন। আপনি দেখবেন আপনার জবে অ্যাপ্লাই করা হয়ে গেছে। তারপর বায়ার আপনার একটি ইন্টারভিউ (মেসেজ আদান-প্রদান) নেওয়ার পর আপনি সিলেক্ট হলে আপনাকে কাজটি করতে দেবে, অর্থাৎ, কাজটির জন্য আপনাকে নির্বাচন করা হবে। এরপর জবটি যখন সক্রিয় হবে, তখন আপনার কাছে একটি নোটিফিকেশন আসবে - Your contract "Facebook" started।
কাজ সম্পর্কিত অথবা কীভাবে কভার লেটার লিখবেন সে ব্যাপারে আপনার কোনো প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানাতে পারেন।
e-mail: uday2441139@gmail.com

আউটসোর্সিং এর শুরুটা যেভাবে করবেন (পর্ব ৯)

অনলাইন মার্কেটপ্লেস ওডেস্কে অ্যাকাউন্ট খোলার পর তাতে কীভাবে জবে বিড করবেন তা নিয়ে নিচে আলোচনা করা হল।

ওডেস্কে যখন কোনো জব পোস্ট করা হয় তখন বায়ারের সম্পর্কে জানার জন্য খোঁজ করলে দেখবেন জবের নিচে ডান দিকে বায়ারের সম্পর্কিত তথ্য থাকে। আপনি, যেসব বায়ারের "Payment Method Verified" লেখা আছে, শুধু সেসব বায়ারের জবেই আবেদন করবেন। "Payment Method Verified" কিনা বুঝতে হলে দেখবেন জবের নিচে একটি ডলারের চিহ্ন আছে। তবেই আপনি বুঝবেন বায়ারের "Payment Method Verified" আছে। আপনি প্রথমে কোনো একটি জবের বিজ্ঞাপন ভালোভাবে পড়ার পর এর নিচে দেখবেন "Apply to this job" নামের একটি বাটন আছে, সেখানে ক্লিক করুন। এরপর নতুন একটি পেজ আসবে। এই পৃষ্ঠার ওপরে "Paid to You" -এর ডান পাশের বক্সে ডলারের পরিমাণ লিখুন, অর্থাৎ, আপনি কত ডলারের বিনিময়ে কাজটি করতে চাচ্ছেন। ঘণ্টাভিত্তিক (আওয়ারলি) কাজ হলে প্রতি ঘণ্টায় কত ডলার হারে কাজটি করতে চাচ্ছেন, তা লিখুন। তারপর আপনি "Cover Letter" বক্সে একটি কভার লেটার লিখুন। যেমন, আপনার জবটি ফেসবুক-সম্পর্কিত হলে অর্থাৎ, জবটি যদি হয় ফেসবুকের কোনো পেজে লাইক কালেক্ট করে দেওয়া, তাহলে লিখতে পারেন—
Hi,
I am interested to do your project. I can provide/collect you more than 1000 facebook likes within 0 days. I have more than 4000 facebook friends and also have many facebook groups, pages etc. So I think, I can do your project properly.
Thanks
Your Name
অর্থাৎ জবটি যে সম্পর্কিত হবে সেই সম্পর্কিত একটি কভার লেটার লিঝুন। এছাড়া আপনি এই সম্পর্কিত কোনো কাজ আগে করে থাকলে তা উল্লেখ করুন। আপনি "Attachment" এ কিছু কাজের নমুনা যোগ করে দিতে পারেন, এতে আপনার কাজ পেতে সুবিধা হবে। এখন আপনি "Agree to Terms" বক্সে টিক চিহ্ন দিয়ে "Apply to this job" বাটনে ক্লিক করুন। এরপর, নতুন পেজ এলে আপনি "Yes, I Understand" বক্সটিতে টিক চিহ্ন দিয়ে "Continue to Apply" বাটনে ক্লিক করে আপনার কাজে বিড করুন।

আউটসোর্সিং এর শুরুটা যেভাবে করবেন (পর্ব ৮)

ওডেস্কে অ্যাকাউন্ট খোলার পর প্রথমেই আপনাকে আপনার প্রোফাইল ১০০% পূর্ণ করতে হবে। এরপর আপনি যেভাবে কাজে বিড করবেন তা নিয়েই আজকের প্রিতিবেদন।

ওডেস্কে কাজের জন্য যেভাবে আবেদন করতে হয়: পত্রিকা কিংবা ওয়েবে কন কাজের জন্য আবেদন করার জন্য বলা হলে যেমন অনেকেই তাদের জীবনবৃত্তান্ত পাথিয়ে কাজে আবেদন করেন। এরপর চাকরিদাতারা তাদের মধ্যে থেকে দু-এক জন কে নির্বাচন করে চাকরি দেন, ঠিক তেমনি অনলাইন আউটসোর্সিং সাইটেও যখন কোনো কাজের বিজ্ঞাপন (জব পোস্ট) দেওয়া হয়, তখন অনেকেই তাতে আবেদন করেন। তাদের মধ্য থেকে বায়াররা কয়েকজনের সাক্ষাৎকার নেন। তারপর, তারা এক বা দুজনকে কাজটি করতে দেন। কাজ পাওয়ার এই প্রক্রিয়াকেই বলে বিডিং বা বিড করা। এখন কথা হল বায়াররা সাক্ষাৎকার নেয় কীভাবে? সাধারণত, আপনাকে ওই সাইটেই বার্তা পাঠানো হবে যে—আপনি কাজটি কত দিন নিয়ে করতে পারবেন, আপনি আগে কখনো এ ধরনের কাজ করেছেন কি না, আপনি কত ডলারের বিনিময়ে কাজটি করে দেবেন ইত্যাদি ইত্যাদি। আপনিও ফিরতি এক বার্তায় এ প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়ে দেবেন। তারপর আপনাকে তাদের পছন্দ হলে বায়াররা আপনাকে কাজটি করতে দেবে। তবে কোনো কোনো বায়ার স্কাইপ সফটওয়্যারে চ্যাট করতে চায় ফলে, তাই স্কাইপিতে www.skype.com একটা অ্যাকাউন্ট থাকা ভালো। কিন্তু ওখানে একটা কথা আছে ওডেস্ক তাদের এমপ্লয়ার আর বায়ার দের সাধারণত স্কাইপ ব্যাবহার করতে দেয় না। তাই এই ব্যাপারে একটু সতর্ক থাকবেন। আবার, কেউ কেউ আছেন, যারা চার-পাঁচটি কাজের জন্য আবেদন করেই কাজ পেয়ে যান। আবার কেউ কেউ আছেন, যারা ১০০টি কাজের আবেদন করেও কাজ পান না। এটা অনেকটা নির্ভর করে আপনি কাজটি করে দেওয়ার জন্য কত কম ডলার চাচ্ছেন এবং আপনি কাজটাতে কেমন অভিজ্ঞ তার ওপর। তাই, কোনো একটা কাজ ওই সাইটে প্রকাশ করার পর যত তাড়াতাড়ি সেটিতে আবেদন করা যায়, ততই ভালো। প্রথম-প্রথম আপনি যত বেশি সময় অনলাইনে থাকবেন, ততই আপনার কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। কারণ কিছু কিছু কাজ আছে, যেগুলো ওয়েবে ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই (এক-দুই ঘণ্টার মধ্যে) জমা দিতে হয়। যেমন ধরুন ফেসবুকে বা অন্য কোনো সাইটে ভোট দেওয়া এবং কিছু ভোট সংগ্রহ করে দেওয়া ইত্যাদি। কাজেই আপনি শুরুতে বেশি সময় অনলাইনে থাকার চেষ্টা করবেন। আপনি প্রতি মিনিটে দেখবেন নতুন নতুন কাজের বিজ্ঞপ্তি দেখা যাচ্ছে।
তাছারা আপনি আপনার কাজের "Project Portfolio" যোগ করতে পারলে আপনার কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

আউটসোর্সিং এর শুরুটা যেভাবে করবেন (পর্ব ৭)

আজ আমরা বরাবরের মতই ওডেস্ক এ আপনার আইডি খোলার পর কি কি করতে হবে তার বাকি অংশটুকু নিয়ে আলোচনা করবো।

আপনি আপনার "সার্টিফিকেশনস" এ কোনো কিছু না দিলে সমস্যা নেই, তবে দিলে যেহেতু ভালো তাই আপনার ইচ্ছা মত কিছু একটা দিয়ে দিন। এখন আপনি দেখবেন, আপনার প্রোফাইল কমপ্লিটনেস আরো বেড়ে গেছে। আপনি যদি আপনার প্রোফাইল কমপ্লিটনেস আরো বাড়াতে চান, তাহলে http://www.odesk.com/tests ঠিকানা থেকে দু-তিনটি টেস্ট দিতে পারেন। তবে আপনি তিন-চারটি টেস্ট দিলেই প্রতি সপ্তাহে ২০টি করে কাজের জন্য আবেদন করতে পারবেন। সাধারণত, "Basic English test, English spelling test, MS word test, Windows XP test" ইত্যাদি টেস্ট অনেক সহজ হয়ে থাকে যা আপনি দিতে পারেন। এই টেস্টগুলোর উত্তর আপনি গুললে সার্চ করলে পেয়ে যাবেন। আপনি চাইলে ওপরের প্রতিটি সেটিংস যতবার খুশি ততবার পরিবর্তন করতে পারবেন। তাই কোনো কিছু ভুল হলে সমস্যা নেই, তা যেকোনো সময় আবার ঠিক করে নিতে পারবেন। আপনি আগের সেটিংস পরিবর্তন করার জন্য এই সাইটে লগইন করলেই ডান পাশে দেখবেন আপনার নাম এবং ছবির নিচে "Edit Profile" লেখা আছে। না থাকলে ওপর থেকে "Find Work" -এ ক্লিক করলে ডান পাশে তা পেয়ে যাবেন। আপনি সেখানে ক্লিক করলেই সবকিছু আবার পরিবর্তন করতে পারবেন। এখন আপনার প্রোফাইলটি অন্যরা, (বায়ারা) যারা আপনাকে জব দেবেন, তাঁরা কেমন দেখতে পাবেন সেটি দেখার জন্য "Find Work" -এ ক্লিক করলে নিচে ডান পাশে দেখবেন "Your Profile Completeness" -এর নিচে লেখা আছে "View your public profile" । আপনি এখানে ক্লিক করলেই দেখতে পাবেন, আপনার পাবলিক প্রোফাইলটি কেমন। আপনি কীভাবে জব খুঁজবেন, এই সাইটে লগইন করার পর "Find Work" -এ ক্লিক করুন। এখন আপনি সার্চ বক্সে যা যা পারেন, তা তা লিখে সার্চ দিন। আপনি যদি এখানে "Facebook" লিখে সার্চ বাটনে ক্লিক করেন, তাহলে ফেসবুক-সম্পর্কিত অনেকগুলো জবের তালিকা আসবে আপনার সামনে। এবার আপনি একটি-একটি করে কাজগুলোর বর্ণনা পড়ে যেগুলো পারবেন শুধু সেগুলোতেই অ্যাপ্লাই করুন। আপনি আরেকটু কাস্টমাইজ করে সার্চ দিতে চাইলে সার্চ বাটনের পাশে দেখবেন "Advanced" লেখা আছে, সেখানে ক্লিক করুন। এখন, আপনি আপনার পছন্দমতো সার্চ অপশনগুলোতে লিখে এবং চেক বক্সগুলোতে টিক চিহ্ন দিয়ে সার্চ দিতে পারেন। এভাবে ড়বেন। "twitter, wordpress, joomla, html, css, javascript, internet, data entry, ms word" ইত্যাদি লিখেও সার্চ দিতে পারেন। তার মানে, আপনি যা যা করতে পারেন, তা তা লিখে সার্চ দিতে পারেন। এভাবেই আপনি আপনার কাজের ক্ষেত্র খুজে নিতে পারবেন।